Echo

Titas Is The Name Of A Murdered River  

Posted by Rezwan in ,

The Titas River is a trans-boundary river of south-eastern Bangladesh and it is more known to the Bengalis by a famous novel and a movie titled "A river named Titas", which depicts the life of the fishermen on its bank.

River Titas, which is the source of livelihood for many people, is now endangered. In Ashuganj town of the Brahmanbaria District of Bangladesh a long diversion road has been hurriedly built through the Titas river and its tributaries and canals obstructing its flow in many parts. Local media reports that it was done to facilitate transhipment of Indian goods on heavy vehicles as the existing roads and bridges are damaged and cannot bear the load of these huge carriers. The netizens are outraged by the developments.

A road through Titas river. Image courtesy Sharat Chowdhury

Here is a picture of the same place taken on 2008.

Mahfuzur Rahman Manik reports [bn]:
সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটগুলোয় (ব্লগ, ফেসবুক) একটা ভিডিওর ব্যাপক ছড়াছড়ি। তেমন কিছু নয়, একুশে টিভিতে প্রচারিত সংবাদের ভিডিও। ‘ট্রানজিট’ নিয়ে প্রচারিত তিন পর্বের এক পর্ব। সেখানে উঠে এসেছে আখাউড়া ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সংযোগস্থলে তিতাস নদী দ্বিখণ্ডিত হওয়ার করুণ কাহিনী। ভারতকে ট্রানজিট সুবিধা দেয়ার নামে তিতাসের মাঝখানে রাস্তা বানিয়ে কীভাবে তাকে মেরে ফেলা হচ্ছে তার প্রমাণ ভিডিওটি। যারা কখনো তিতাস দেখেননি কিংবা নদী বরাবর কীভাবে রাস্তা বানানো হলো তা দেখার কৌতূহল থেকেও অনেক ইন্টারনেট ব্যবহারকারী এতে ঢুঁ মেরেছেন।

Recently the social networking sites (Blog, Facebook) are flooded with a video. Nothing extra-ordinary, but a a news report on Ekushey TV. Its the first episode of the three part fetaure on "transit". the video is the proof how a road was built dividing Titas river and killing it in the name of providing transit facility. Many internet users are watching this video, especially those who have never seen Titas or those, who are simply interested to see how a road can be built dividing a river.
একুশে টেলিভিশন প্রচারিত সংবাদটি বলছে, তিতাস নদীর ওপর বাঁধ দেয়ায় চারপাশের লাখ লাখ হেক্টর জমিতে ফসল উত্পাদনের ওপর বিশাল প্রভাব পড়ছে। এ নদীর ওপর নির্ভর করে যারা জীবিকা নির্বাহ করেন, তাদের জীবনে এসেছে অনিশ্চয়তা। বিশেষ করে জেলেদের অবস্থা খারাপ। সেখানকার মানুষ ঘরে ফসল তুলতে পারেন না। হাজার হাজার হেক্টর জমি তলিয়ে গেছে পানিতে। পরিবেশ বিপর্যয় তো রয়েছেই।

The Ekushey TV report divulges that the cultivation in the surrounding thousands of hectares of land has already been effected. Those who depends on this river for their livelihood face an uncertain future. Especially the fate of the fishermen are doomed. Thousands of hectares of cultivated fields have been submerged and many crops are damaged. The environmental damage is enormous.

Blogger Kallol Mostafa went to the site and reported [bn]:
ভারতের ত্রিপুরার পালাটানায় ৭২৬ মেগাওয়াট ক্ষমতার একটি বিদ্যুৎ প্রকল্পের প্রয়োজনীয় ভারী যন্ত্রপাতি ৯৬টি ওভার ডাইমেন্সনাল কার্গো’র (ওডিসি) মাধ্যমে পরিবহনের জন্য ৩০ নভেম্বর ২০১০ এ ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। [..] আশুগঞ্জ বন্দর আর আশুগঞ্জ থেকে আখাউড়া সড়ক পথ ওডিসি পরিবহনের অনুপযুক্ত হওয়ায় বন্দর উন্নয়ন, ৪৯ কিমি রাস্তা মেরামত ও ১৮ মিটার পর্যন্ত প্রশস্ত করার জন্য ভারত এককালীন ২৫.৫০ কোটি টাকা প্রদান করবে বলে ঠিক হয়। [..] এই রাস্তায় তিতাস নদী ও বিভিন্ন খালের উপর যেসব ব্রীজ ও কালভার্ট রয়েছে সেগুলো এত ভারী কার্গোর ভার বহনের সক্ষম নয়। তাই রাস্তা মেরামত ও প্রশস্ত করণের পাশাপাশি ভারতের আসাম বেঙ্গল কেরিয়ার বা এবিসি ইন্ডিয়াকে দ্বায়িত্ব দেয়া হলো ব্রীজ ও কালভার্টগুলোর পাশ দিয়ে “বিকল্প রাস্তা” তৈরী করার।

A memorandum of understanding was signed on November 30, 2011 to provide transit facility to 96 over-dimensional cargoes (ODCs) which will carry heavy machinery for a 726 Megawatt power plant in Trpura, India. [..] It was decided that India will pay 255 million Bangladeshi Taka to upgrade 49 kms of road by making them 18 meter wide. However, the bridges and culverts on these roads are not able to carry the heavy loads of these ODCs. So besides up-gradation of the road, the Asam Bengal Carrier (ABC) company was awarded a contract to build alternative roads besides those bridges and culverts.
A makeshift road near the culvert on a canal of Titas river. Image by Niloy Das. Courtesy Dinmojur Blog
The whole article has been shared many times in social networks. Kallol also shares [bn] his frustrations and anger:
দুনিয়ার আর কোন দেশের শাসক শ্রেণী এইভাবে নিজ দেশের নদী-খালের মাঝখান দিয়ে বাধ নির্মাণ করে আরেক দেশের মালামাল পরিবহনের ব্যবস্থা করেছে বলে আমাদের জানা নাই।

I am not aware of any other country who has diverted its rivers and canals with dams and built roads through them to facilitate transit of goods of a neighboring country.
Some bloggers took an initiative to carry out a visit to the site. A Facebook event [bn] was created.

Kowshik provided [bn] the scope of the visit:

আমাদের রাজনীতি নেই, আমরা রাজনীতি বুঝি না - কিন্তু সব গেলো সব গেলো বলে আহাজারি করতে পারি! সেই আহাজারীর মাত্রা আরেকটু বাড়াতে আগামী ৩০শে ডিসেম্বর তিতাসের খণ্ডিত বুকে গিয়ে জানতে চাই সেখানকার মানুষদের কি মতামত!

We have no political intention, we don't understand politics but we can cry for our loss. To extend that cry to another level we want to go to the divided Titas and ask for local people's opinions.
Kowshik also shared frequent updates [bn] of the bloggers' initiatives.

Here is a three part videocast showing interviews of bloggers and locals:



(Part 1: Featuring Ali Asif Galib [bn])



(Part 2: Featuring Sharat Chowdhury [bn])


(Part 3: Featuring Ali Mahmed [bn])

Blogger Sharat Chowdhury shares his experience [bn] of actually being there:
আমরা দেখি নদীর বুক চিড়ে রাস্তা বানানো হয়েছে। ট্রানজিটের রাস্তা। আমাদের নতজানুতার পথ। এই পথ দেখে আমাদের কষ্ট হয়, ঘৃণা হয়, অবিশ্বাস গাঢ় হয় সরকারের বিবেচনা বোধ আর সদিচ্ছার প্রতি।

We see that roads have been built dividing the river. The roads for transit, the road to our submissiveness. Our heart aches seeing this road, we loath. Our mistrust on the government deepens.
Sharat adds:
এই মুহুর্তে প্রতিবাদ প্রতিরোধ ছাড়া আর কোন পথ নেই। ব্লগাররা কাজ করতে পারেন স্থানীয় অপনিয়ন লিডার হিসেবে। কেবল রাজধানী-কেন্দ্রীক আন্দোলনের বদলে আমরা এমনও দেখতে পারি যে ব্রাম্মণবাড়ীয়া, আশুগঞ্জের ব্লগাররা প্রতিবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় প্রশাসনকে। অবহিত করেছেন স্থানীয় মানুষদের। সংগঠিত করেছেন। এটা আমাদের করতেই হবে।

Now we have no options except protesting the road constructions. Not only the capital centric protests, we would like to see that the local bloggers are protesting to the local government. We would like to see them organize locals and making them aware. We have to do it.
Also published in Global Voices Online.

This entry was posted on January 03, 2012 at Tuesday, January 03, 2012 and is filed under , . You can follow any responses to this entry through the comments feed .

0 comments

Post a Comment